রাখী

রিটায়ারমেন্টের পর জমা টাকা দিয়ে টালিগঞ্জের ভিতরে একটা বাড়ি কিনে ফেললেন সৃজনবাবু । বাড়িটা বড় রাস্তা থেকে অনেকটা ভিতরে – বেশ নিরিবিলি । দোতলা বাড়ি – বসার ঘর, খাবার ঘর, রান্নাঘর ছাড়া চারটি শোবার ঘর এবং দুটি টয়লেট । তিনজনের পরিবারের পক্ষে এই বাড়ি যথেষ্ট । পরিবারের বাকি দুইজন সদস্যা হলেন সৃজনবাবুর স্ত্রী প্রমিলাদেবী ও তাদের মেয়ে রাখী । রাখী কলেজে পড়ে – B.Sc. র দ্বিতীয় বর্ষে । যদিও এই পরিবারে আরো একজন সদস্য আছে – ওনাদের ছেলে রক্তিম । সে থাকে বিদেশে । রক্তিম বিবাহিত । বিয়েতে সৃজনবাবু ও প্রমিলাদেবী দুজনের ভীষণ আপত্তি ছিল বলে সে বাবা-মার সাথে সম্পর্ক রাখে না । সৃজনবাবু এই মানসিক ধাক্কা সামলে উঠতে পারলেও প্রমিলাদেবী তা পারেননি । এখনও তিনি ছেলের জন্য লুকিয়ে কান্নাকাটি করেন । রাখী তার দাদাকে খুব ভালোবাসতো । সে চেষ্টা করেছিল দাদার সাথে সম্পর্ক রাখতে । ই-মেল, চিঠি ইত্যাদির মাধ্যমে যোগাযোগের চেষ্টা সে করেছিল । কিন্তু, দাদার উত্তর সে কোনভাবেই পায় নি ।

পড়তে থাকুন