পায়রা

মায়ের সাথে ভালো করে কথা শেষ না করেই রচনা mobile phone টাকে বিছানার এক কোনে ছুঁড়ে ফেলে দিল | রাগে, হতাশায় তার শরীর কাঁপতে থাকলো | নিমেষের মধ্যে চোখ থেকে জল বেরিয়ে এল | বিছানায় আছড়ে পড়ে, বালিশে মুখ গুঁজে কাঁদতে থাকলো সে |

মা কী করে তার সঙ্গে এইরকমটা করতে পারল? একমাস ধরে যে প্ল্যানটা সে করেছিল, মা সেটা শেষ মুহুর্তে নষ্ট করে দিল | তাও কিনা একটা তুচ্ছ পায়রার জণ্য ! এই কী একমাত্র সন্তানের প্রতি মায়ের ভালবাসা | নিজের মেয়ের থেকে একটা অজানা পায়রা মায়ের কাছে বড় হল? আর কোথাকার কোন পায়রা, উড়ে এসে জুড়ে বসলো আর তার সমস্ত প্ল্যান বানচাল করে দিল | তার সমস্ত রাগ গিয়ে পড়ল ঐ পায়রাটার উপর |

পড়তে থাকুন

আবার পেয়েছি ফিরে

কতদিন পরে দেখা দিলে তুমি,
কথায় ছিলে লুকিয়ে হে মোর নয়নমনি?
ভেবেছিলাম মাঝে দেখা হবে তব সনে
কত কথাই না বলব তোমার কানে কানে|
তোমাকে দেখে এই হৃদয় করব ধন্য
তোমার মায়ার বন্ধনেতে থাকব আমি আচ্ছন্ন|
তোমার পানে তাকিয়ে তোমাকে শুধুই দেখব
মণের মাঝেতে প্রতিদিন তোমারই ছবি আঁকব|

কিন্তু, বৃথা এ স্বপ্ন, বৃথা এ কল্পনা,
স্বীকার হয়নি (তোমার কাছে) মোর এ কাতর প্রার্থনা|
তবে এর তরে আজ দুঃখ করি না আর
চোখের সামনে তোমাকে যে ফিরে পেয়েছি আবার|

কিন্তু ভাবি – আবার কি তুমি সরে যাবে মোর কাছ থেকে
নাকি আশ্রয় নেবে এ তৃষ্ণার্ত হৃদয় মাঝে|
জানি না তোমাকে পাব কিনা এ জীবন যুদ্ধের শেষে
তবু মুছবে না কভু তোমার ছবি মোর এ হৃদয় থেকে|

বিরহ বেদনা

যদি শুধু দুঃখ দিতেই চেয়েছিলে,
তবে কেন আমায় ভালবেসেছিলে?
আমিতো তোমাকে দুঃখ দিইনি
তবে কেন তুমি সরে গেলে আমাকে একা ফেলে?

যেদিন হলো মোদের দেখা প্রথম;
ভেবেছিণু ব্যর্থ হয়নি জনম
তুমি হবে মোর জীবনসাথী
একসাথে কাটাব দিবস রাতি
সুন্দর করে তুলব জীবন একই সঙ্গে মিলে ||

কত স্মৃতি আজ নয়ণে ভাসছে
কত কথা আজ মনেতে আসছে
এই স্মৃতি নিয়ে এবার কাটাব জীবন
যতদিন না আসে আমার মরণ
তোমার ছবি রাখব এঁকে আমার হৃদয় তলে ||

আগন্তুক

মোর হৃদয়ে আজ যার আমন্ত্রণ,
জানাই তারে আমি সাদর নিমন্ত্রণ |
তার আগমনে আজ কেটেছে অবসাদ –
আজ আমি তাই হয়েছি উন্মাদ |
উদগ্রীব এ হিয়া প্রতিক্ষা করে তার পথপানে,
আসবে সে পরে, তবু এ মন কিছুতেই না মানে |
তার সামনে আসতে লাগে মন খুব ডর,
কাঁপতে থাকে পদযুগল, বাধা দেয় যে কর |

মণের সুতীব্র চিৎকার চায় মুখ হতে মুক্ত হতে –
প্রতারণা করে ওষ্ঠ, জিহ্বা আরস্ঠ হয়ে আসে,
প্রতিবারই এ হিয়া চায় জানতে –
সে কি মোর ভালবাসে?

আমি যে তারে ভালোবেসেছি,
মণ, প্রাণ, সবকিছু তারে সোঁপেছি,
এখন হতে জীবনভর তারে আমি শুধু চাইব,
মিলনক্ষণ আসুক বা না, তারে আমি ভালবাসব ||

প্রথম দেখা

এখনো নয়ণে ভাসে মোর সেইদিনের ছবি,
মণে আছে তখন পস্চিমেতে ঢলেছিল রবি,
সেদিন ভেবেছিনু, এ নয় গোধুলিবেলা, এ ঊষা,
সবিতার কিরণে আলোকিছে আজ চির অন্ধ নিশা
ক্ষণিক পরে বুঝিনু আমি এ আলো নয়কো অরুণের,
নয় বাস্তব, এ শুধু কল্পনা মোর প্রাণ আর মণের |
গোধুলি লঘ্ন আলোকিছে যে, সে নয় দিনমণি
নহে ধুমকেতু, নহে চন্দ্রমা, সে এক অপরুপা রমনী |
মন বলিল, চিনি তারে, সে নয় আজনবী –
বারে বারে মোর স্বপ্নে আসা, সে-ই মোর মনমানবী |
পড়তে থাকুন

Boarding Lounge

“Excuse me!”

কলকাতা airport-এর Boarding Lounge এ বসে শ্রেয়সী একটু তন্দ্রাচ্ছন্ন হয়ে পড়েছিল | বেশ কয়েকদিন খুব ধকল গেছে | খুড়তুত বোনের বিয়ের উপলক্ষে Bangalore থেকে এসেছিল সে | বিয়েটা খুব আনন্দে কেটেছে, কিন্তু ঘুম sufficient হয়নি | আজ ভোরের flight ছিল | রাত শেষ হতে না হতেই বেরিয়ে পড়তে হয়েছে তাকে | Technical problem এর জণ্য flight এক ঘন্টা দেরিতে ছাড়ছে | তাই সে চোখ বুঝে বসে অপেক্ষা করছিল | কখন যে তন্দ্রা এসে গেছে বুঝতে পারে নি | একটু বিরক্ত হয়েই সে চোখ খুলল |

“Excuse me! Are you Miss Shreyosi Roy?”

পড়তে থাকুন

স্কুল

আমায় ক্ষমা কর তুমি,
সেই কবে তোমাকে ছেড়ে এসেছি আমি|
আর যাইনি ফিরে,
তোমার কোলের মাঝে, স্নেহের তরে|
কতদিন পাই নি সেই আদর,
যা না পেলে হতাম বড়ই কাতর |
কতদিন তাকাইনি তোমার পানে,
আজ তুমি ক্ষমা কর এ অধম সন্তানে|
পড়তে থাকুন

অচিনপুর

চলে যেতে চাই বহুদূরে
কোথাও কারুর সঙ্গে বা একা কোনো tour-এ;

যেথায় থাকবে না পড়াশুনার চিন্তা,
থাকবে শুধুই আকাশ অনন্তা |
থাকবে না কোনো ব্যবসায়িক কোলাহল,
বলবে না কেউ অসত্য অনর্গল |
থাকবে না দুর্বলের প্রতি সবলের অত্যাচার,
কিংবা বিচারকের অন্যায় অবিচার |
থাকবে না স্বার্থপর লোকের ভিড়
কিংবা অট্টালিকাসম নীড় |
থাকবে নাকো ঝগড়া বিবাদ
রইবে নাকো রণ নিনাদ|
পড়তে থাকুন

প্রণমি তোমায় রবীন্দ্রনাথ

তুমি আছো মোদের মণে,
রয়েছ জুড়ে মোদের প্রাণে,
তুমি যে মোদের গর্ব,
তোমার জণ্য ত্যাজিতে রাজি আমরা মোদের সর্ব |

তোমার কাব্যে আছে যে প্রেম, আছে মণের কথা,
কোথাও আছে নিপীড়িত ও দুঃখীজনের ব্যাথা |
প্রকৃতির রূপের বর্ণনা আছে তোমার শত কবিতায়,
প্রেম, ভালবাসা, স্নেহ, মমতা পাই যে তোমার কথায় |
বেদনাবহুল দিনে তোমার কবিতা আনে হর্ষ
বর্ষণবহুল দিনেতে পাই রোমান্টিকতার স্পর্শ |
কভু ভাসিয়েছ মোদের প্রেমের জোয়ারে,
ভাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ করেছ সবারে |
পড়তে থাকুন

I love you!!!

Love is not perceptible, so it is not matter,
only one can give it to some other.
We love our fathers, we love our mothers
We love our sisters, we love our brothers
We love our wives, we love our friends,
we love to share it with our girl-friends.
Some think love is stupid, boring
But, believe me, this is the most interesting thing.
If you find someone and she is loved by you
Don’t be afraid to tell her “I Love You!!!”.