গানের ওপারে

মিসেস সেন দরজায় ধাক্কা মারতে মারতে বললেন- “মাম্পি,-অ্যাই মাম্পি – দরজা খোল, খেতে আয়। বাবা কতক্ষণ অপেক্ষা করবে তোর জন্য?”

আরও কয়েকবার দুমদুম করে দরজায় আওয়াজ করলেন মিসেস সেন। ভিতর থেকে বিদিশা মানে মাম্পির গলা পাওয়া গেল। সে গান গাইছে –“ও মেরে সোনারে সোনারে সোনা, দে দুঙ্গি জান জুদা মৎ হো নারে”

মিসেস সেন বিরক্ত হয়ে বলতে থাকলেন –“এই গান-পাগল মেয়েকে নিয়ে আমি আর পারছি না। গান শুনলে যে ও কোন ভাব জগতে চলে যায় কে জানে। আগে তাও টেপ রেকর্ডারে গান শুনত, ডাকলে সাড়া দিত। এখন হয়েছে আইপড, সারাদিন কানে গুঁজে গান শুনছে। আজ আবার দরজাও ভিতর থেকে বন্ধ করে রেখেছে। কখন হুশ হবে কে জানে।“

পড়তে থাকুন

Advertisements

উপহার

৮ই মে – আমার জীবনে এক গুরুত্বপূর্ণ দিন । দিনটি আমার সবচেয়ে প্রিয়বন্ধু দীনেশের জন্মদিন । কিন্তু দুই বছর আগের ঘটনার জন্য দিনটা আমার কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে । ওই ঘটনার সাথে আমি আকস্মিকভাবে জড়িত থাকলেও ঘটনার প্রেক্ষাপট দীনেশ ও তার মায়ের কাছ থেকে পরে জেনেছিলাম । সেই ঘটনাগুলিকে যথাসম্ভব গুছিয়ে বলার চেষ্টা করছি ।

পড়তে থাকুন